আমি একা, বড়ো একা

__শক্তি চট্টোপাধ্যায় চন্দনের ধূপ আমি কবে পুড়িয়েছিমনে নেই। মন আর স্মৃতিগুলি ধরে না আদরে।সংশ্লিষ্ট চন্দন এই অবহেলা সহ্য করে গেছে।কখনো বলেনি কিছু, বলেনি বলেই পরিত্রাণপেয়েছে সহজে, নয়তো অসহ্য কুঠারে ধ্বংস হতো। আমার সংহারমূর্তি দেখেছে চন্দন একদিনকিশোর বয়সে, সেই অভিপ্রেত সুকালে,…

কে বানাইলো এমন রঙমহল খানা 

– লালন শাহ কে বানাইলো এমন রঙমহল খানাহাওয়া দমে দেখ তারে আসল বেনা।। বিনা তেলে জ্বলে বাতিদেখতে যেমন মুক্তা মতিজলময় তার চতুর্ভিতি মধ্যে খানা।। তিল পরিমাণ জায়গা সে যেহদ্দরূপ তাহার মাঝেকালায় শোনে আঁধলায় দেখে নেংড়ার নাচনা।। যে গঠিল এ রঙমহলনা…

অভিমানের খেয়া 

__রুদ্র মুহম্মদ শহীদুল্লাহ এতোদিন কিছু একা থেকে শুধু খেলেছি একাই,পরাজিত প্রেম তনুর তিমিরে হেনেছে আঘাতপারিজাতহীন কঠিন পাথরে। প্রাপ্য পাইনি করাল দুপুরে,নির্মম ক্লেদে মাথা রেখে রাত কেটেছে প্রহর বেলা__এই খেলা আর কতোকাল আর কতোটা জীবন!কিছুটাতো চাই__হোক ভুল, হোক মিথ্যে প্রবোধ,আভিলাষী মন…

অসুখ

– রুদ্র গোস্বামী আজকাল কি যে উল্টোপাল্টা বায়না শিখেছে ওযখন তখন এসে বলবে, ওর একটা আকাশ চাই।আর আমিও বোকার মতো সব কাজ ফেলেওর চোখের মাপের আকাশ খুঁজতে থাকি!শুধু কী তাই! তাতেও আবার ওর আপত্তি।এটাতে বলে মেঘ ভরতি তো ওটাতে একঘেয়ে…

আসিবে হে প্রাণ কেমনে এখানে 

– রামনিধি গুপ্ত আসিবে হে প্রাণ কেমনে এখানে |ননদী দীরুণ অতি, আছে সে সন্ধানে ||রাখিতে পরাণ মোর, আমি নাহি পারি আর |পিরীতে এই সে হ’লো সংশয় জীবনে || ১ ||মদন রোদন করে, বিরস দেখিয়ে মোরে |লাজ ভয় কাল সম দয়া…

বৃষ্টি সোনা তোকে

– রুদ্র গোস্বামী বৃষ্টি বৃষ্টিজলে জলে জোনাকিআমি সুখ যার মনেতার নাম জানো কী ? মেঘ মেঘ চুল তারঅভ্রের গয়নানদী পাতা জল চোখফুলসাজ আয়না। বৃষ্টি বৃষ্টিকঁচুপাতা কাঁচ নথমন ভার জানালায়রাতদিন দিনরাত। ঘুম নেই ঘুম নেইছাপজল বালিশেহাঁটুভাঙা নোনা ঝিলদুচোখের নালিশে। বৃষ্টি বৃষ্টিজলেদের…

বাতাসে লাশের গন্ধ 

– রুদ্র মুহম্মদ শহীদুল্লাহ আজো আমি বাতাসে লাশের গন্ধ পাইআজো আমি মাটিতে মৃত্যূর নগ্ননৃত্য দেখি,ধর্ষিতার কাতর চিৎকার শুনি আজো আমি তন্দ্রার ভেতরে…এ দেশ কি ভুলে গেছে সেই দু:স্বপ্নের রাত, সেই রক্তাক্ত সময় ?বাতাসে লাশের গন্ধ ভাসেমাটিতে লেগে আছে রক্তের দাগ।এই…

মানুষ গুরু নিষ্ঠা যার

– লালন শাহ (ভবে) মানুষ গুরু নিষ্ঠা যারসর্ব সাধন সিদ্ধ হয় তারনদী কিংবা বিল-বাঁওড়-খালসর্বস্থলে একই এক জল।। একা মেরে সাঁই হেরে সর্ব ঠাঁই ।।মানুষে মিশিয়া হয় বিধান তারমানুষ গুরু নিষ্ঠা যার… নিরাকারে জ্যোতির্ময় যে,আকার সাকার হইল সে ।।দিব্যজ্ঞানী হয় তবে…

যখন একাকী আমি একা

__শক্তি চট্টোপাধ্যায় এখন সন্ন্যাসী দুইজন–একজন আমি আর অন্যজন আমার পিতারমমতাবিহীন চক্ষুমাঝেমধ্যে রাত্রে দেন দেখাযখন একাকী আমি একামাঝেমধ্যে রাত্রে দেন দেখাকেন তাঁর নামত সন্ন্যাসকেন তিনি মাত্র মায়াহীনমনে ভাবিএমন দেখিনি তাঁকে আগেকোনদিনএখন সন্ন্যাসী দুইজন–একজন আমি আর অন্যজন আমার পিতারমমতাবিহীন চক্ষুমাঝেমধ্যে রাত্রে দেন…

সবিনয় নিবেদন

__শঙ্খ ঘোষ আমি তো আমার শপথ রেখেছিঅক্ষরে অক্ষরেযারা প্রতিবাদী তাদের জীবনদিয়েছি নরক করে |দাপিয়ে বেড়াবে আমাদের দলঅন্যে কবে না কথাবজ্র কঠিন রাজ্যশাসনেসেটাই স্বাভাবিকতা |গুলির জন্য সমস্ত রাতসমস্ত দিন খোলাবজ্র কঠিন রাজ্যে এটাইশান্তি শৃঙ্খলা |যে মরে মরুক, অথবা জীবনকেটে যাক শোক…

বাংলা কবিতার ধারা

– শহীদ কাদরী কে যেন চিৎকার করছে প্রাণপণে গোলাপ! গোলাপ!’ ঠোঁট থেকে গড়িয়ে পড়ছে তার সুমসৃণ লালা, প্রেম, প্রেম’ বলে এক চশমা-পরা চিকণ যুবকসাইকেল-রিকশায় চেপে মাঝরাতে ফিরছে বাড়ীতে,`নীলিমা, নিসর্গ, নারী’- সম্মিলিত মুখের ফেনায়পরস্পর বদলে নিলো স্থানকাল, দিবস শর্বরী হলোসফেদ পদ্মের…

অভিশাপ দিচ্ছি 

– শামসুর রাহমান আজ এখানে দাড়িয়ে এই রক্ত গোধূলিতেঅভিশাপ দিচ্ছি।আমাদের বুকের ভেতর যারা ভয়ানক কৃষ্ঞপক্ষদিয়েছিলো সেঁটে,মগজের কোষে কোষে যারাপুতেছিলো আমাদেরই আপনজনের লাশদগ্ধ, রক্তাপ্লুত,যারা গনহত্যাকরেছে শহরে গ্রামে টিলায় নদীতে ক্ষেত ও খামারেআমি অভিশাপ দিচ্ছি নেকড়ের চেয়েও অধিকপশু সেই সব পশুদের।ফায়ারিং স্কোয়াডে…

বন্দনা 

– শাহ মুহম্মদ সগীর প্রথমে প্রণাম করি এক করতার।যেই প্রভুর জীবদানে স্থাপিলা সংসার।।দ্বিতীয়ে প্রণাম কঁরো মাও বাপ পাত্র।যান দয়া হন্তে জন্ম হৈল বসুধায়।।পিঁপড়ার ভয়ে মাও না থুইলা মাটিতে।কোল দিয়া বুক দিয়া জগতে বিদিত।।অশক্য আছিলুঁ দুর্বল ছাবালতান দয়া হন্তে হৈল এ…

খুকুর ভাবনা

– শিবরাম চক্রবর্তী আলজিভেরই অপারেশন কালকে হবে খুকুর।খুকু যাবে হাসপাতালে। আজকে সারা দুপুরবোঝায় তাকে মা যে, “মোটেই একটুও ভয় নেই !লাগে নাকো কোথাও কিছু। দেখতে না দেখতেইহয়ে যায় সে অপারেশন। যায় না পাওয়া টের।তারপরেই না বাড়ি ফিরে আমোদ করো ফের।সেই…

সাধন-সৌধ

– শেখ ফজলুল করিম প্রতিবেশীগণ প্রবীর খৃস্টে কহিল মিনতি করি,তোমার লাগিয়া দিতে চাই প্রভু, সাধন-সৌধ গড়ি।খৃস্ট কহেন, গড়ে দাও তবে স্রোতের উপরে ঘরলোকে বলে, উহা হয় কি কখনো? অসম্ভব ঘোরতর।মিষ্ট মধুর হাসিয়া প্রেমিক কহিল, বন্ধুগণসংসার সুখ-বাসনা পুষিয়া অন্তরে কোন জনভজনা…

যোদ্ধার ডাইরি থেকে

– শ্রীজাত ভেবেছিলাম শিখব পালকসফল হলাম অস্ত্রচালনায় সমস্তদিন ধান্দা পেটেরসময় আমার মাংস কেটে খায় যুদ্ধে জেতা, যুদ্ধে হারাএই হিসেবেই কাটল সারারাত অকাজ আমায় করল কাজীস্বীকার করি, তোমার বাজি মাত নির্বাসনে একলা থাকিতোমায় ভেবে উদাস রাখি দিন মিটিয়ে নিয়ে ঝগড়াক্ষুধাতুমি আমায়…

ছিন্নমুকুল

– সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত সবচেয়ে যে ছোট পিড়ি খানিসেখানি আর কেউ রাখেনা পেতে,ছোটথালায় হয় নাকো ভাতবাড়াজল ভরে না ছোট্ট গেলাসেতে।বাড়ির মধ্যে সবচেয়ে যে ছোটখাবার বেলা কেউ ডাকে না তাকে।সবচেয়ে যে শেষে এসেছিল,তারই খাওয়া ঘুচেছে সব আগে। সবচেয়ে যে অল্পে ছিল খুশি,খুশি…

ইউলিসিস

– সলিল চৌধুরী এক বড় ঝড়কে পোষ মানিয়েহাতপাখা নাম দিয়ে ঘরে এনেছিদুরন্ত বন্যাকে কোণঠাসা করেএকটি গেলাসে তাকে পান করেছিসূর্যের পিঠে আমি হাত বুলিয়েকিছু তার তেজ এনে আলো জ্বেলেছিতারা ভরা বিশ্বকে অক্ষর করেছোট এক বই লিখে পড়ে ফেলেছি Share

ভালোবাসি

– রেদোয়ান মাসুদ শুধু একটি বার বলো ভালোবাসিতোমাকে আর কোনদিন ভালোবাসতে হবে না।মরুভূমির তপ্ত বালিতেও পা দিতে হবে না।আমার জন্য তোমকে নিশি রাতে পা ভিজাতে হবে না।আকাশ বাতাস শুনুক তোমার প্রতিধ্বনি।সবাই জানুক কেউ আমাকে ভালোবেসেছিল।আমার হৃদয়ের ডাকে কেউ সাড়া দিয়েছিলো।শুধু…

সংগ্রাম চলবেই

– সিকান্দার আবু জাফর রক্তচোখের আগুন মেখে ঝলসে যাওয়া আমার বছরগুলোআজকে যখন হাতের মুঠোয় কণ্ঠনালীর খুন পিয়াসী ছুরিকাজ কি তবে আগলে রেখে বুকের কাছে কেউটে সাপের ঝাপিআমার হাতেই নিলাম আমার নির্ভরতার চাবিতুমি আমার আকাশ থেকে সরাও তোমার ছায়াতুমি বাংলা ছাড়ো…

সিঁড়ি

__সুকান্ত ভট্টাচার্য আমরা সিঁড়ি,তোমরা আমাদের মাড়িয়েপ্রতিদিন অনেক উঁচুতে উঠে যাও,তারপর ফিরেও তাকাও না পিছনের দিকে;তোমাদের পদধূলিধন্য আমাদের বুকপদাঘাতে ক্ষতবিক্ষত হয়ে যায় প্রতিদিন। তোমরাও তা জানো,তাই কার্পেটে মুড়ে রাখতে চাও আমাদের বুকের ক্ষতঢেকে রাখতে চাও তোমাদের অত্যাচারের চিহ্নকেআর চেপে রাখতে চাও…

অন্ধ মেয়ে

 __সুকুমার রায় গভীর কালো মেঘের পরে রঙিন ধনু বাঁকা,রঙের তুলি বুলিয়ে মেঘে খিলান যেন আঁকা!গবুজ ঘাসে রোদের পাশে আলোর কেরামতিরঙিন্ বেশে রঙিন্ ফুলে রঙিন্ প্রজাপতি! অন্ধ মেয়ে দেখ্ছে না তা – নাইবা যদি দেখে-শীতল মিঠা বাদল হাওয়া যায় যে তারে…

আমিই সেই মেয়ে

– শুভ দাশগুপ্ত আমিই সেই মেয়ে।বাসে ট্রেনে রাস্তায় আপনি যাকে রোজ দেখেনযার শাড়ি, কপালের টিপ কানের দুল আর পায়ের গোড়ালিআপনি রোজ দেখেন।আরআরও অনেক কিছু দেখতে পাবার স্বপ্ন দেখেন।স্বপ্নে যাকে ইচ্ছে মতন দেখেন।আমিই সেই মেয়ে। বিহারের প্রত্যন্ত গ্রামে দিনের আলোয় যার…

তুলনায় সমালোচনা

– শেখ ফজলুল করিম শত শত ক্রোশ করিয়া ভ্রমণ জ্ঞানীর অন্বেষণেসহসা একদা পেল সে প্রবীণ কোনো এক মহাজনে।সুধালো, হে জ্ঞানী, আকাশের চেয়ে উচ্চতা বেশি কার?জ্ঞানী বলে, বাছা, সত্যের চেয়ে উঁচু নাই কিছু আর।পুনঃ সে কহিল, পৃথিবীর চেয়ে ওজনে ভারি কি…

পূজা

– শ্রীজাত আগুনের পরশমণি ছোঁয়াও প্রাণেছ্যাঁকা যে কেমন লাগে, সবাই জানে। পুড়ে ঘা তৈরি হবে, তবেই তো সেজ্বালাবার সাহস পাবে লিখতে বসে …..তারও খেল পাল্টে যাবে পরের দানে যে ছিল নিয়মভাঙা পাগলা ঘোড়াসে হবে সস্তাদামের রাঙতামোড়ানো বলে এল . বি…

ইলশে গুঁড়ি 

__সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত ইলশে গুঁড়ি! ইলশে গুঁড়িইলিশ মাছের ডিম|ইলশে গুঁড়ি ইলশে গুঁড়িদিনের বেলায় হিম|কেয়াফুলে ঘুণ লেগেছে,পড়তে পরাগ মিলিয়ে গেছে,মেঘের সীমায় রোদ হেসেছেআলতা-পাটি শিম্|ইলশে গুঁড়ি হিমের কুঁড়ি,রোদ্দুরে রিম্ ঝিম্|হালকা হাওয়ায় মেঘের ছাওয়ায়ইলশে গুঁড়ির নাচ, –ইলশে গুঁড়ির নাচন্ দেখেনাচছে ইলিশ মাছ|কেউ বা নাচে…

এক গুচ্ছ চাবি 

– সলিল চৌধুরী উত্তরাধিকার সূত্রেপেয়েছি শুধু এক গুচ্ছ চাবিছোটো-বড়ো মোটা-বেঁটেনানারকমের নানা ধরনের চাবিমা বললেন, যত্ন করে তুলে রেখে দে… তারপর যখন বয়স বাড়লোজীবন এবং জীবিকার সন্ধানেপথে নামতে হোলপকেটে সম্বল শুধু সেই এক গুচ্ছ চাবিছোটো বড়ো মোটা বেঁটেনানারকমের নানা ধরনের চাবি………

বৃষ্টিতে হই একাকার

– রেদোয়ান মাসুদ মেঘ জমেছে, আকাশ কাপছে, চারিদিকে অন্ধকার এমন দিনে প্রয়োজন আমার শুধু ভালোবাসার। আয় না তুই বাইরে আয়, বৃষ্টিতে হই একাকার ভিজে ভিজে হয়ে যাই আমরা, দুজন দুজনার। ভালোবাসা বাড়ুক না আজ হোক নিরাকার যেদিকে খুশি সেদিকে যাবো,…

মানা

 – সিকান্দার আবু জাফর হাটে-মাঠে-গঞ্জে-ঘাটে সুদূর গাঁয়ের পথেনদীর তীরে, বালুর চরে, সমুদ্র সৈকতেছড়িয়ে আছে জীবন যেন আনন্দে আটখানাতুমিই যে তার ভাগ নেবে না তোমার শুধু মানা।ও-জঙ্গলে দোয়েল নাচে, শালিক ডাকে গাছেঘুঘুর ছানা মিটমিটিয়ে হয়তো চেয়ে আছেবুলবুলিটার লাল টুপিটা দেখার নেশায়…

ছাড়পত্র 

 – সুকান্ত ভট্টাচার্য যে শিশু ভূমিষ্ঠ হল আজ রাত্রেতার মুখে খবর পেলুমঃসে পেয়েছে ছাড়পত্র এক,নতুন বিশ্বের দ্বারে তাই ব্যক্ত করে অধিকারজন্মমাত্র সুতীব্র চিৎকারে।খর্বদেহ নিঃসহায়, তবু তার মুষ্টিবদ্ধ হাতউত্তোলিত, উদ্ভাসিতকী এক দুর্বোধ্য প্রতিজ্ঞায়।সে ভাষা বোঝে না কেউ,কেউ হাসে, কেউ করে মৃদু…

Posts navigation