লেখক জীবন

লেখক রফিকুল ইসলাম বাংলাদেশের ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার কানাইডাঙ্গা গ্রামের একটি সম্ভ্রান্ত পরিবারে ১৯৬৫ সালের ৬ নভেম্বর তাঁর জন্ম। সাত ভাইবোনের মধ্যে চার ভাইয়ের তৃতীয় স্থানে তিনি। তার পিতা মৃত দাউদ হোসেন মন্ডল এবং মাতা মৃত মোছাঃ রাবেয়া বেগম। পেশায় তিনি সরকারি চাকরিজীবী। 

মুলত তিনি কবিতা চাষী। গ্রামের নির্মল পরিবেশে বেড়ে উঠেছেন তিনি। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চাকরির জোটার সুবাধে বাকি জীবনটিও তিনি গ্রামেই অতিবাহিত করছেন। ছোট বেলা থেকেই সাহিত্যের প্রতি ছিলেন প্রবল দুর্বল, সেই সময়ই তার অনেক কবিতা বিভিন্ন পত্রিকাতে প্রকাশিত হয়েছে। মানুষের সাথে আড্ডা দেয়া তার ভাষণ পছন্দ, এক কথাই ভীষণ সঙ্গপ্রিয় মানুষ তিনি। তার সমস্ত লেখা জুড়ে রয়েছে জীবন বোধ ও উপলব্ধির প্রগাঢ় বিস্তার।

একদিকে তিনি একজন জনপ্রিয় কবি ও অন্যদিকে তিনি একজন বলিষ্ঠ সংগঠক। কবিতার অঞ্জলি সাহিত্য পরিষদের তিনি প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। একহাতে সামলে নিচ্ছেন সবকিছু। চাকুরী, লেখালেখি, সংগঠন পরিচালনা ও অন্যান্য সামাজিক কর্মকাণ্ডের সাথে তিনি নিজেরে ব্যতিব্যস্ত রাখেন সর্বক্ষণ। প্রকৃতিগতভাবে ছোটবেলা থেকে তিনি সাহিত্য অনুরাগী। এই অনুরাগ আর ইচ্ছাশক্তি তাকে লেখার অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে। প্রকৃতিপ্রেমী এ কবি একজন স্বাধীনচেতা মানুষ।

ইতিপূর্বে তাঁর অসংখ্য লেখা যেমন- ভ্রমণ কাহিনী, কবিতা ও ছোট গল্প বিবিধ সাহিত্য ম্যাগাজিন ও বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক—সমকাল, সংবাদ, ইত্তেফাক, সংগ্রাম, যায়যায় দিন, যুগান্তর, কালের কন্ঠ, নয়া দিগন্ত, ভোরের কাগজ, সংবাদ, প্রতিদিনের সংবাদ, আলোকিত সকাল, দৈনিক জনতা সহ বিভিন্ন বিভাগীয় পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। তিনি বিভিন্ন সাহিত্য সংগঠন থেকে সাহিত্য সম্মাননা পেয়েছেন।

তাঁর প্রকাশিত তিনটি একক কাব্যগ্রন্থ “নিমগ্ন নিভৃতচারী, অশ্রুজলের নদী, শূন্যতার অনুভবে”। কবির প্রকাশিত যৌথ কাব্যগ্রন্থের মধ্যে রয়েছে, ভালোবাসার পঙক্তিমালা, ছেঁড়া পালকের কাব্য , নিঃসঙ্গ কবিতামালা, মেঘ বালিকার কাব্যকথা, দুঃখের আঁধার রাত্রি, শিল্পের সংসার, কবি ও কবিতার ভুবন, নক্ষত্রের আলো ইতিমধ্যে প্রকাশিত হয়েছে।

পরিশেষে লেখকের বক্তব্য:

আসসালামু আলাইকুম, আমি অচিনপুর এক্সপ্রেস এ অনলাইন সাহিত্য গ্রুপের মাধ্যমে প্রথম থেকেই সংযুক্ত রয়েছি। অনলাইন সাহিত্য চর্চার মধ্য দিয়েই মূলত লেখালেখির অনুপ্রেরণা ও উদ্বুদ্ধ হওয়া।

অচিনপুর এক্সপ্রেসের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। লেখক পোর্টফোলিও পেজ কার্যক্রমটি এগিয়ে যাক, এর মাধ্যমে লেখকদের একটি অনলাইন প্লাটফর্ম তৈরী হোক। আমি মনে করি, পৃথিবীতে কবিতাই হল মানব মনের অনুভূতি প্রকাশের শ্রেষ্ঠ মাধ্যম। পাঠকের হৃদয়ে জায়গা করে আমি সর্বদাই সাহিত্যের চারণভূমিতে বিচরণ করতে চাই। সকলে ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন।

রফিকুল ইসলাম
০৫-০২-২০২১

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Please visit...